কালো বিড়াল

বিষধর কালনাগ বহুকাল কেঁদেকেটে একদিন রাতের বেলা মা জননীর পা ছুঁয়ে ইঁদুর খাবার লোভে রেলের নরম গতিতে বিছানা বিছিয়ে তার হয়ে গেলো রেলের কালো বিড়াল দুরন্ত দুর্বার সাঙ্গ পাঙ্গ সব দেশ জুড়ে উড়ালো বিপ্লবী ঝান্ডা । আনাচে কানাচে পেতে ইঁদুর … বিস্তারিত >

আগমন

নব বধুর আগমনে সারি সারি চাঁদ মুখ করেছে ভীড় শোবার ঘর রান্না ঘর আন্দুয়ার বান্দুয়ার একদম ঠাঁসা, ঠাঁই নেই কে দেখবে আগে সেই অস্থিরতায় মান অভিমান চরমে ওঠে কারো কারো মুখ বেফাঁস কথা বলে নিতান্ত অভ্যাসবশে বসন্তের হাওয়া লাগা বেয়াদব … বিস্তারিত >

সুখ পাখী

শ্রাবণ ফিরে গেলে প্লাবন হবে না পাখি দিন বয়ে যায় বনানীর আড়ালে স্নিগ্ধ ছায়া ফলে আয় পাখি আয় । সাতান্ন কেটে গেলো খোলসে লুকিয়ে মুখ ঝরলো আঁখি নীর পাখায় ঝড় তুলে ধরা দে এবার পেছনে পড়ে থাক্ তিতাসের তীর । … বিস্তারিত >

তোমার নির্ভাবনায় কাটছে সময়

উড়িয়ে দিয়েছো ঘুড়ি মেঘলা আকাশে ঝড় বৃষ্টি তুফান কারো কারো পেছনে লেলিয়ে দিয়েছো পাগলা কুত্তার মতো অবিরাম কেবল ঘেউ ঘেউ তাড়িয়ে বেড়ায় ।   ঘর দিলে না বাড়ি দিলে না অর্থবিত্ত কিছুই দিলে না তবে কেনো পুষ্মময় সংসার দিলে, আগুনজ্বলা … বিস্তারিত >

দৃশ্যাবলী / মফিজুল ইসলাম খান

বুকের উপর দিয়ে এই যে সড়ক এঁকে বেঁকে চলে গেছে দেশান্তরে সামনে তার ডবল সাবের বাঁক বাঁকের বাঁয়ে হিজলতলীর হাট । হাটের পা তলতল আনকিজলা জলার কিনার ঘেঁষে যদি যান দেখবেন মাথা নুয়ে দাঁড়িয়ে আছে এক জীর্ণ বিদ্যাপীট ন্যাড়া বটবৃক্ষ … বিস্তারিত >

স্বদেশ

স্বদেশ তখন কাম্য ছিলো একটি আজন্ম ঠিকানার জন্য ছিলাম উন্মাদ । তাই হালের বলদ, লাঙ্গল জোয়াল, বাড়ি ঘর, বিষয় আশয়, পরিবার পরিজন ফেলে দিয়ে কাদাময় হাতে তুলে নিয়ে ছিলাম অস্ত্র যাবতীয় যুদ্ধ সরঞ্জাম । সাধের এই দেহ, দেহে লুকানো প্রাণ … বিস্তারিত >

কাসেমের মা

কলেজ থেকে কাসেম আর গেলো না ফিরে তার ছোট্ট গাঁয়ে । কলেজ থেকে রাজপথ, রাজপথে মিছিল মিছিলে মিছিলে ঠাঁই পেলো সে রাজার জেলে । কাসেম আর গেলো না ফিরে তার ছোট্ট গাঁয়ে কাসেমের মা কেঁদে কেঁদে হয়রান আকুল ব্যাকুল । … বিস্তারিত >

মাফিয়ার বাপ

স্বপ্ন দেখে কি আর হবে স্বপ্নতো স্বপ্নই থেকে, যায় ফল ধরে না আকাশে ঝুলে রূপালী চাঁদ – মাটিতে নামে না মেঘের আড়ালে হারিয়ে যায় মাফিয়ার বাপ স্বপ্ন দেখে কি আর হবে?   গরিব মানুষের এই এক দোষ যখন তখন স্বপ্ন … বিস্তারিত >

নির্বাসনে যাবো আমি

নির্বাসনে যাবো আমি নির্বাসন দাও যদি জনারণ্যে । কোলাহল আমার পছন্দ নয় তবু মাথা পেতে নেবো এই অগ্নিশিখা জ্বলে জ্বলে হবো ছাই বিধাতার সুনিপুন বলি আমি এক জিন্দালাশ ।   বাজাবো মোহন সুর নির্বাসনে মাথায় বাঁধবো রুমাল রক্ত লাল হাতে … বিস্তারিত >

বুঝলো না কেউ

মনের দুঃখ আমি কারে বলি কারে দেই তার ভাগ বুঝলো না কেউ জ্বলে পুড়ে ছারখার তৃষিত হৃদয় জল দিলেও নেভে না এই অনলের ঢেউ ।   বুকের রক্ত মাখা প্রেম ভালোবাসা বিলিয়ে দিয়েছি সব পৃথিবীর বুকে সুখের খবর তবু ভাসে … বিস্তারিত >

রাত এগিয়ে গভীর হলে

রাত এগিয়ে গভীর হলে হাওয়া বেতাল হয় কল্কির গন্ধে দিশেহারা বাউল দোতারায় এঁকে যায় জীবনের ছবি । তার নিজস্ব রমণী প্রেম কামনার বহিৃশিখা একা বিছানায় পুড়ে পুড়ে ছাই হয় বিচ্ছেদ দহনে ।   রাত এগিয়ে গভীর হলে একদল নেশাখোর যুবক … বিস্তারিত >

ঝলসানো মানবতা

ভোরের আবছা আলোয় বৃষ্টি ভোজা এক দল উপবাসী কাক গুলশানের এঁটো স্তুপে জ্বলে ওঠে হিংসায় কা কা রবে গগণ বিদারী প্রতিবাদ জানায় লাফিয়ে লাফিয়ে টোকা মারে বিধ্বস্ত কুমারী সখিনা বানুর মুন্ডিত মুন্ডে । আমল দেয় না কুমারী প্রতিবাদের ঝড় শুন্যে … বিস্তারিত >

যাবার ঠিকানা

অবাধ হাওয়া মাঝ রাতে নেশায় বিভোর চালকের বুকে ঢেউ তোলে সরাৎ সরাৎ ।   রসিক চালক চোখ বুজে নীলিমায় খোঁজে বলাকা যুগল ব্রেক ছিড়ে যায় । গন্ডা গন্ডা মৃত দেহ রাস্তার ধারে প্রহর কাটায় বেলা যায় ।   হাত পা … বিস্তারিত >

সেই মেয়েটি

প্রতিদিন তড়িঘড়ি পড়ন্ত বেলা গলির বুক মাড়িয়ে চুপচাপ হেঁটে যায় যে মেয়েটি কাঁধে তার রংচটা লাল ব্যাগ ডান হাতে ঘড়ি বাম হাতে সুর তোলা কাঁচের চুড়ি খাড়া নাকে নাকফুল ঝিলিক মারা ।   মেঘ কালো চুলে তার রূপালী কিলিপ থেকে … বিস্তারিত >

তোকেই চাই হে কৃষ্ণকলি

আমার বাড়ির সামনে দিয়ে যখোন হেঁটে যাস্ তুই কাঁধে ঝুলিয়ে চক্চকে ব্যাগ হাতে মোবাইল মনোহর বারান্দায় বসে আমি তখোন পলকহীন কাজল কালো নয়নে দেখি তোর পথ চলা ঘাড় ছুঁই ছুঁই লম্বা চুল তার ছন্দিত নাচন । আমার আকাশ ছিলো শান্ত … বিস্তারিত >