স্তম্ভিত!

জগত অনেক দূর চলে গিয়েছে আমি কোন এক অতীতে পড়ে আছি জানি না এখানে কেন জানি না এটা কীভাবে হল কিছুই জানি না! এই তো সেদিন মনে হল আমি এখানেরই লোক কিন্তু কেমনে সব কিছু বদলে গেল আমি তো পরিবর্তন … বিস্তারিত >

মসজিদ

মসজিদ, মসজিদ কি ধাঁধাঁর ছোঁয়াচে নিষ্প্রভ হলো পবিত্র রুহের জিকির। অপ্রভ রুহধারী অগণিত প্রাণ গুঞ্জরে গুন গুন, ‘আল্লাহ মহান’, ‘আল্লাহ মহান’। এ তসবিতে নেই প্রাণ, তোতা পাখী গাওয়া গান উধাও রাহমাহ, উধাও বারাকাহ -শুধু ‘আমি’ ‘আমি’ জয়গান বাণী ও কর্ম … বিস্তারিত >

বৃষ্টিভেজা যৌবন

অবিরাম জলধারা শ্রাবণ দুপুর   পাতায় পাতায় সুর ছন্দে ছন্দে খেলায় বিভোর সব গাছ গাছালি উতাল মাতাল মন ছলাৎ ছলাৎ নিঠুর বন্ধু তুই লুকালি কোথায়?   ঠোঁটে ঠোঁট চোখে চোখ চাতক চাতকী জলজ ভালোবাসায় একাকার সোনা বন্ধু আমার অভাগীরে একা ফেলে … বিস্তারিত >

আন্দোলিত প্রান্তরে আহত চিৎকার

০১.   অবাধ হাওয়া মাঝ রাতে নেশায় বিভোর চালকের বুকে ঢেউ তোলে সরাৎ সরাৎ। রসিক চালক চোখ বুজে নীলিমায় খোঁজে বলাকা যুগল।   ব্রেক ছিড়ে যায় গণ্ডা গণ্ডা মৃত দেহ রাস্তার ধারে প্রহর কাটায় বেলা যায়।   হাত পা ছড়িয়ে … বিস্তারিত >

একটি প্রার্থনা

খোদা দয়াময় রহমান রহিম হে বিরাট হে মহান হে অনন্ত অসীম নিখিল ধরণীর তুমি অধিপতি তুমি নিত্য, সত্য পবিত্র অতি চির অন্ধকারে তুমি ধ্রুব জ্যোতি তুমি সুন্দর, মঙ্গল মহামহী তুমি মুক্ত স্বাধীন বাধা বন্ধনহীন তুমি এক তুমি অদ্বিতীয় চিরদিন তুমি সৃজন পালন ধ্বংসকারী, তুমি অভয়, … বিস্তারিত >

ত্রয়ী গীতিকবিতা ।। শফিকুল ইসলাম

গীতিকবিতা-(০১) সেদিনের সেই তুমি কত বদলে গেছ আমার পৃথিবী আজও তেমনি আছে, যেমন দেখেছ॥ কোথায় সেই সুর, সেই গান প্রাণে প্রাণে এত মান অভিমান, মনে হয় যেন তুমি আজ সবই ভুলে গেছ॥ সেইসব দিন আজও আমায় আকুল করে ডাকে, যেতে … বিস্তারিত >

নষ্টা রমণী

পর্দা উঠলেই দেখা যাবে এক নষ্টা রমণী খেলায় মাতোয়ারা দেহের ভাঁজে ভাঁজে ছন্দের ঊঠানামা জলসানো যৌবন চোখের কার্ণিশে কামোনার বহ্নিশিখা হৃদয় ছুঁয়ে যায় ।   পর্দা উঠলেই দেখা যাবে নিপোশাক রমণীর সবকিছু কাংখিত শান্তি লোভনীয় উপকরণ স্তরে স্তরে সাজানো বিষাক্ত … বিস্তারিত >

স্মৃতির পাতা থেকে…

        জীবনের নিঃসঙ্গ বন্ধুর পথ চলতে চলতে আকস্মিক তার সাথে দেখা। অজানা, অচেনা তবু যেন কত পরিচিত, যুগ জন্মান্তরের চেনা। ভাবি এই বুঝি আমার ঠিকানা, এখানেই বুঝি পথচলা শেষ। এখানেই বুঝি ভালবাসার ছায়ায় বিশ্রাম অবিরাম বিশ্রাম। কিন্তু … বিস্তারিত >

ফালগুন আমার চেতনা

ফুল ফুটুক আর না ফুটুক আজ কিন্তু বষন্ত জেগে উঠো কম্বলাবৃত আর থেক না ঘুমন্ত। নয়া বষন্তের ডাক এসেছে নয়া যৌবনের হাতছানি সৌরভে মৌ মৌ পুস্প পল্লবে ভুলে যাও আজ দু:খ গ্লানী। প্রানে প্রানে আজ বষন্ত বাহার হৃদয়ে হৃদয়ে দোল … বিস্তারিত >

“পথ যত হোক বন্ধুর,বন্ধু যেওনা থামি”/শফিকুল ইসলাম

[সারাবিশ্বে প্রকাশ্যে কিংবা লোকচক্ষুর অন্তরালে যারা আজ ও জনতার মুক্তি সংগ্রামকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে কাজ করে চলেছেন, সেইসব অমিত আশাবাদী অসমসাহসী সংগ্রামী মানুষদের উদ্দেশ্যে নিবেদিত] পথ যত হোক বন্ধুর ,বন্ধু যেওনা থামি আসবেই আসবে সুন্দর আগামী।। আধার দেখে চমকে … বিস্তারিত >

হামদূর রহমান কহে

হামদূর রহমান কহে ভাইরে ছাব্বিশ হাজার * তাহার আগে শুনো ভাইরে সংখ্যা ইন্দিরার * ভারতের পক্ষে মত পাইবার লাগিয়া * বাড়াইয়া কহিল গান্ধী দশ লক্ষ বানাইয়া * তারপর মুজিব আইয়া শুন্য না বুঝিয়া * এক টানে বাড়াই দিল তিরিশ লাখ … বিস্তারিত >

‘এখনই সময়’

মুক্তিসেনাদের বিজিত সীমানায় চার যুগের দ্বার-দেশে এসে আর হাহাকার নয়, শান্তিপ্রিয় জনতা চায় সততা, ধৈর্য, দৃঢ়তার সাথে সাহসী শক্ত হাতে দুমড়ে, মুচড়ে, উপড়ে ফেল যত অসৎ আস্তানাগুলো। ফাগুনের রক্তঝরা আঙ্গিনায় আর হিংসা-বিবাদ নয়, কাঠফাটা খরার পর বৃষ্টিস্নাত নব সজীবতায় গণতন্ত্রের … বিস্তারিত >

কবি শফিকুল রচিত একটি ‘বৃষ্টি আকাংখার কবিতা’

তবুও বৃষ্টি আসুক… বহুদিন পর আজ বাতাসে বৃষ্টির আভাস, সোঁদা মাটির অমৃত গন্ধ- এখনই বুঝি বৃষ্টি আসবে সবারই মনে উদ্বেগ- তাড়াতাড়ি ঘরে ফেরার ব্যস্ততা। তবু আমার মনে নেই বৃষ্টি ভেজার উদ্বেগ আমার চলায় নেই কোনো লক্ষণীয় ব্যস্ততা। দীর্ঘ নিদাঘের পর … বিস্তারিত >

সারা বাংলায় খবর দে, বাকশালীদের কবর দে…

মুক্তিকামী মানবের এ মিছিল অন্তহীন এসো শরীক হও এ শান্তি যাত্রায়, অগ্রসর হও সম্মুখপানে, প্রতিবাদী হও জুলুম নিপীড়নের বিরুদ্ধে; উম্মুক্ত করো এ নিঃস্বার্থ আহবান- সারা বাংলায় খবর দে নিপীড়কদের কবর দে। । সত্য মিথ্যার এ দ্বন্দ সংঘাত চিরন্তন এসো সাক্ষী … বিস্তারিত >

বাবা

সীমাহীন অভিযোগ, কেন এত বাঁধা কেন শুধু শাসন কেন তুমি বসিয়েছ হুকুমের আসন?   কেন বকো এত বকা যদি ভুল করি, মাঝে মাঝে মনে ভাবি ছেড়ে ছুরে দিয়ে সবি নিজের মনের মত যা যা খুশী করি।   পড়ালেখা ভারি তেঁতো … বিস্তারিত >