সন্ত্রাসী হামলা;মুদ্রার উল্টো পিঠ

1333 জন পড়েছেন

প্যারিস হামলা সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে ভয়াভয় হামলা এবং আলোচিত ঘটনা।সন্ত্রাসী এই হামলায়ে মারাত্নক প্রভাব পড়েছে বিশ্বব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্পর্ক তথা সামরিক নীতিতে। ধারাবাহিক এই সব সন্ত্রাসী হামলা নাম শুনলে চোখের পর্দায়ে ভেসে ওঠে দাড়ি,পাঞ্জাবি পরহিত হাতে রাইফেল নিয়ে আল্লাহ আঁকবর বলে ঝাঁপিয়ে কোন মুসলমান যুবক।পশ্চিমা বিশ্বের পেনিট্রেই’শন করানো এসব ভ্রান্ত ধারনা চিন্তা,উপলব্ধি সম্বন্ধে বারবার আমাদের মনে  প্রশ্ন উঠে সব সন্ত্রাসীরা কি মুসলিম?কিংবা সব মুসলিম কি সন্ত্রাসী? এই প্রশ্ন গুলো সফল ভাবে  সমাজের সকল  স্তরে  প’ট্রোনাইজ করতে পেরেছে আধুনিক ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া,প্রিন্ট মিডিয়া।এবং প্রতিটি  সমাজের প্রতিটি স্তরে এসব প্রশ্ন গুলোর সাথে সহমত পোষণকারী কমবেশি বিদ্যমান।যারা লিবারেল কিংবা সেক্যুলারিষ্ট নামে অধিক পরিচিত।মজার বিষয় হচ্ছে এসব লিবারেল কিংবা সেক্যুলারিষ্ট  তীর্থ স্থান হিসেবে পরিচিত আমেরিকা চলিত বছর অর্থাৎ ২০১৫ সালে পুলিশ সন্ত্রাসবাদ দমনে নামে ১০০০ জন নাগরিক নিহত হবার মত ঘটনা ঘটেছে।যাহা দিনে গড় প্রতি ৩ জন নাগরিক নিহত হয়েছেন

 

যাই হোক; মিডিয়া শুধু মুসলিম সন্ত্রাসী হামলার ফোকাস রেখে  অনন্য সন্ত্রাসী হামলা গুলোকে জনসম্মুখে লোকানোর সিন্ধান্তের নৈতিক প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রসঙ্গে অবতারণার করে এসব বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতির দায়-দায়িত্ব এড়াতে চাইছেন। যদি আমরা সন্ত্রাসী হামলা মুল উৎস হিসেবে মুসলমানদের ধরে নেই কিন্তু পরিসংখ্যা অবস্থান কিন্তু আমাদের বিপরীত।গত পাঁচ বছরে মধ্যে  ইউরোপে ২% কম সন্ত্রাসী হামলা ছিল ধর্মী সম্পর্কিত! ২০১১ থেকে ২০১৪ মধ্যে ৭৩৮ টি সন্ত্রাসী হামলার মধ্যে ৮টি ধর্মীয় সম্পর্কিত।

 

  • উল্লেখ পরিসংখ্যান বলে যে, বিগত ২০১৩ তে ১৫২ টি সন্ত্রাসী হামলা ইউরোপে হয়েছে যার মধ্যে মাত্র ধর্মী সম্পর্কিত হামলা।
  • বিগত ২০১২ তে ২১৯ টি সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে যার মধ্যে মাত্র ৬টি ধর্মীয় সম্পর্কিত হামলা।
  • বিগত ২০১১ তে ১৭৪টি সন্ত্রাসী হামলা হয় যার মধ্যে কোনটি ধর্মীয় সম্পর্কিত বা ধর্মীয় উৎসাহে হামলা যোগসূত্র পাওয়া যায়নি।
  • ২০১০তে ইউরোপে ২৪৯টি হামলা হয়। যার মধ্যে ৩টি হামলা ইসলামিষ্ট উগ্রবাদী কর্তৃক সম্পর্কিত।
  • ২০০৯ তে ইউরোপে ২৯৪ টি সন্ত্রাসী হামলা হয়।যার মাত্র একটি মাত্র হামলা ইসলামিষ্ট উগ্রবাদী কর্তৃক বলে সনাক্তকরণ করা হয়

 

terrorism-EU-2-638x599

 

“ওয়ার ওন টেরর” মূল যোগান দাতা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে লেফট  উইং গ্রুপের এক্সিটিমিজম ও ইহুধি সন্ত্রাসী হামলা নিয়ে মেইন ষ্টীম মিডিয়া গুলোর হাহাকার তেমন একটা চোখে পড়ে না।এই নিয়ে পশ্চিমা বিশ্বের মেইন ষ্টীম মিডিয়া মাথা ব্যথা থাকুক বা না থাককু কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বার্ষিক রিপোর্ট গুলোতে ঠিকই আসল সত্যতা বেরিয়ে এসেছে। মার্কিন কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফিআই এক স্টাডি অনুযায়ী ১৯৮০ থেকে ২০০৫ সালে মধ্যে ইহুদি কর্তৃক সন্ত্রাসী কার্যকলাপ মুসলিম অপেক্ষায়ে বেশি। যার গড় পার্থক্য (৭% ভার্সেস ৬%) । সবচেয়ে ভয়ংকর তথ্য টি হচ্ছে এভারেজ মার্কিন নাগরিকেরা ইহুদি সন্ত্রাসী গ্রুফ “ইহুদি ডিফেন্স লীগ” কিংবা ল্যাটিন সন্ত্রাসী গ্রুফ “ইজেরসিতো পপুলার বরিকো মাসিতেরোস” (Ejercito Popular Boricua Macheteros) নামটি পর্যন্ত শুনেনি।

 

piechart2 terrorismbyevent

 

অন্যদিকে আমেরিকাতে শুধুমাত্র ২০১৩ তে রেকর্ডসঙ্গ ১৪০০০ হাজার মত হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়।এবং ৯/১১ হতে ২০১৩ পর্যন্ত ১৯০,০০০ মত হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়।যার মধ্যে ৩৭ জন সন্ত্রাসীকে জীবিত ধরা সম্ভব হয়

 

 

তাহলে প্রশ্ন উঠতে পারে মুসলিম কর্তৃক হামলা গুলো পশ্চিমা তথা বিশ্বের মিডিয়া বেশি বেশি করে হাইলাইট করছে বা কেন? কারণ বর্তমান বিশ্বের ভূতাত্ত্বিক রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক,সামরিক প্রভাব একক পরাশক্তি কেন্দ্রিক ঘিরে সব কিছু রচিত হচ্ছে । আর এই একক পরাশক্তি লক্ষ্য,উদ্দেশ্য নব্য শক্তিশালীকে প্রভাব বিস্তার থেকে নিবৃত রাখা এবং নিজেদের উন্নত অর্থনীতির রসদ অর্থাৎ জ্বালানী সরবরাহ ব্যবস্থাকে নিরো বিচ্ছিন্ন ও জ্বালানীর ব্যবস্থার উপর দখল কায়েম করা।সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর অর্থাৎ নব্বই দশকের পর থেকে একক পরাশক্তি বিশ্ব ব্যবস্থার রাজনীতি,অর্থনীতি,কূটনীতি,সামরিকয়ান তেল এবং প্রাকৃতিক গ্যাস উৎপাদনশীল দেশ গুলোকে ঘিরে রচিত হচ্ছে।আর এসব জ্বালানী সম্পদের অধিকারী দেশ গুলো হচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের এবং মধ্য এশিয়ার মুসলিম  দেশ গুলো।এজন্যই জন্ম হচ্ছে নানা মাত্রার অস্থিরতা ও নিত্য নতুন দাবার ছক।আর এই অস্থিরতা শুরু হয়েছিল আফগানিস্তান সামরিক অভিযানের পর থেকে এবং মধ্যপ্রাচ্য বিশেষ করে ইয়েমেন সিরিয়া গৃহযুদ্ধ এই অস্থিরতা নতুন মাত্রা যোগ করেছে।নতুন মাত্রার অস্থিরতার ফলাফল হিসেবে আমরা পেয়েছি আইএসআইস  মত ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী গোষ্ঠী।

 

 

 

তথ্য আহরণঃ

  1. http://anonhq.com/american-policso-far-in-2015/
  2. http://thinkprogress.org/world/2015/01/08/3609796/islamist-terrorism-europe/
  3. http://www.loonwatch.com/2010/01/not-all-terrorists-are-muslims/
  4. http://sites.duke.edu/tcths/files/2013/06/Kurzman_Muslim-American_Terrorism_in_2013.pdf

1333 জন পড়েছেন

Comments are closed.