এ মাটি আমার আত্মা / মফিজুল ইসলাম খান

1641 জন পড়েছেন

এক ইঞ্চি মাটিও আমি দেবো না কাউকে বুকে বেঁধে

লাল সবুজ পতাকা আগলে রাখবো ভালোবাসা আর

চোখের পানিতে যতোকাল বাঁচি হাত পা ছড়িয়ে আমার

রক্ত কণা প্রতিহত করবে কালবোশেখী ঝড় শত্রু সেনা ।

 

এ মাটি আমার মা তার সতীত্ব হরণের চাক্ষুস সাক্ষী

এ মাটি আমার বাবা তার রক্তে ভেজা গণকবর

এ মাটি আমার বোন তার দুঃখ বাসর

এ মাটি আমার সরলা কৃষাণী তার রক্তের জলাভূমি

এ মাটি আমার ভাই তার হাড়গোড়ের আস্তরণ

এ মাটি আমার খুন আমার ক্ষত বিক্ষত আত্মা ।

 

এখানে ফসল ফলবে

চোখ বুঝে আমি বাবার রক্ত খাবো

এখানে বৃক্ষের বাগান হবে

আমি স্মৃতির মিনার বানাবো

এখানে জলকেলি হবে

আমি মায়ের সতীত্ব রক্ষায় লাঠি হাতে প্রহরী থাকবো ।

 

আমার ধন নেই আমার জন নেই

আমার অস্ত্র নেই আমার সৈন্য নেই

আমি জানি আমাকে কেউ সাহায্য করবে না

আমার পেছনে থাকবে না কেউ ।

 

আমার হৃদয় ভালোবাসায় পুর্ণ

আমার চোখ অপেক্ষমান খরস্রোতা নদী

আমার রক্ত আগুনের ফুলকি টগবগে টাইগার

আমি জেগে থাকবো আজীবন ।

এ মাটি আমার আত্মা আমার সরলা কিষাণী

আমি দেবো না কাউকে যতোকাল বেঁচে থাকি

আগলে রাখবো বুকে জড়িয়ে প্রিয় পতাকা

এ মাটি আমার ভালোবাসা আমার ঠিকানা ।

 

এ মাটি আমার বাবার কবর ভাইয়ের যুদ্ধ স্মৃতি

এ মাটি আমার মা বোনের সতীত্ব হারানোর চারণ ভূমি

এ মাটি হানাদার নিধনের ইতিহাস কাউকেও দেবো না

আগলে রাখবো আজীবন রক্তের বাঁধনে ।

 

এখানে ফসল ফলবে শহীদ বাবার রক্ত খাবো

এখানে জন্ম নেবে ফলবতী বৃক্ষ

আমি ফল খাবো ভাইয়ের রক্ত মাখা

এখানে প্লাবন হবে মা বোনের সতীত্ব হরণের সাক্ষী

লাঠি হাতে দাঁড়িয়ে থাকবো কাউকেও দেবো না

এ মাটি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ফসল আমার স্বপ্ন বাসর ।

 

 

1641 জন পড়েছেন

About মফিজুল ইসলাম খান

মফিজুল ইসলাম খান পিতা-মৃত আব্দুল মন্নাফ খান । মাতা-সাফিয়া খাতুন । জন্ম- ০৪-০৯-১৯৫৪ । জন্মস্থান-ঘিলাতলী, বিবির বাজার, কুমিল্লা। শিক্ষাগত যোগ্যতা-এমকম,এলএলবি । একটি জাতীয়করণকৃত ব্যাংকের ডিজিএম (অবঃ)। বর্তমানে আইনজীবী । বসবাস-ঢাকায় । ইতিপূর্বে প্রকাশিত কবিতার বই-আন্দোলিত প্রান্তরে আহত চিৎকার, জোসনার ফুল, যন্ত্রণার অনুলিপি । ছড়ার বই-তাক ডুমাডুম ঢোল বাজে । ছড়া-কবিতার বই-আবোল তাবোল । উপন্যাস-মিসকল মফিজ । যৌথ- কবিতার বই-কোমল গান্ধার । যৌথ শিশুতোষ গ্রন্থ-খেঁকশিয়াল ফুলপরী ও বাজপাখীর গল্প ।

Comments

এ মাটি আমার আত্মা / মফিজুল ইসলাম খান — ১ Comment