সেই মেয়েটি

716 জন পড়েছেন

প্রতিদিন তড়িঘড়ি পড়ন্ত বেলা

গলির বুক মাড়িয়ে চুপচাপ

হেঁটে যায় যে মেয়েটি কাঁধে তার

রংচটা লাল ব্যাগ ডান হাতে ঘড়ি

বাম হাতে সুর তোলা কাঁচের চুড়ি

খাড়া নাকে নাকফুল ঝিলিক মারা ।

 

মেঘ কালো চুলে তার রূপালী কিলিপ

থেকে থেকে খেলা করে বাতাসের সাথে

সুতনুর ভাঁজে ভাঁজে বিজলী চমক

টলোমলো যৌবন হৃদয় কাড়া ।

 

গলির শেষ মাথায় দাঁড়িয়ে যে বাড়িটি

আকালের চির সাথী মরোমরো

সেখানে বসতি তার ভয়ে জড়োসড়ো ।

 

বিধির অকাল বলি নির্বাক বাবা তার

বিছানায় শুয়ে শুয়ে মৃত্যুর প্রহর গুনে

পৃথিবী নিরব হলে কান পেতে শোনে

খেঁকশিয়ালের ডাক নেড়ি কুত্তার মরণ কান্না ।

 

বছর চারেক আগে তার মারা গেছে বউ

একপাল ছেলেমেয়ে সকাল বিকাল

সুর করে পাঠ করে কোরান শরীফ ।

 

কপালে সোনালী টিপ মনে হাহাকার

ইতিহাস মনে রেখে বিকালের রোদে

হেঁটে যায় যে মেয়েটি বাতাসে উড়িয়ে শাড়ির আঁচল

খবর মিলেছে তার অন্য পাড়ায় টিউশনী আছে

রাত দশটা নাগাদ ।

 

রাত দশটার পর ঘোমটায় মাথা ঢেকে

বাড়ি ফেরে যে মেয়েটি হাতে টর্চ লাইট

আমি হতে চাই তার সুবোধ ছাত্র আজীবন

পড়ার টেবিলে বসে চুপচাপ ডুবে যাবো

তার চোখের নদীতে পাতা উল্টিয়ে

ধীরে ধীরে পড়ে নেবো তার কষ্টের ইতিহাস ।

716 জন পড়েছেন

About মফিজুল ইসলাম খান

মফিজুল ইসলাম খান পিতা-মৃত আব্দুল মন্নাফ খান । মাতা-সাফিয়া খাতুন । জন্ম- ০৪-০৯-১৯৫৪ । জন্মস্থান-ঘিলাতলী, বিবির বাজার, কুমিল্লা। শিক্ষাগত যোগ্যতা-এমকম,এলএলবি । একটি জাতীয়করণকৃত ব্যাংকের ডিজিএম (অবঃ)। বর্তমানে আইনজীবী । বসবাস-ঢাকায় । ইতিপূর্বে প্রকাশিত কবিতার বই-আন্দোলিত প্রান্তরে আহত চিৎকার, জোসনার ফুল, যন্ত্রণার অনুলিপি । ছড়ার বই-তাক ডুমাডুম ঢোল বাজে । ছড়া-কবিতার বই-আবোল তাবোল । উপন্যাস-মিসকল মফিজ । যৌথ- কবিতার বই-কোমল গান্ধার । যৌথ শিশুতোষ গ্রন্থ-খেঁকশিয়াল ফুলপরী ও বাজপাখীর গল্প ।

Comments are closed.