মনসার কালনাগিনী / মফিজুল ইসলাম খান

2379 জন পড়েছেন

আমাকে দংশন করে বার বার

মনসার কালনাগিনী

সুতানালী সাপ ।

 

বেহুলার বাসর ঘর থেকে বেরিয়ে

যায়নি ফিরে সে নিজ আস্তানায়

শেষ রাতে চুপিচুপি ঢুকেছে আমার ঘরে

আমি নাকি তার দ্বিতীয় লক্ষীন্দর । সেই থেকে আজও

রসিয়ে রসিয়ে কাটে শিরা উপশিরা অবিরাম

মগজের পরতে পরতে পান করে

শক্তি সুধা অস্থি মজ্জা ইচ্ছে মতো।

 

বসুধার খেলার পুতুল আমি

আমাকে নিয়ে আপন মনে খেলা করে সে

যখোন তখোন যখোন তখোন ।

 

আমার নসিব কান্নার ফোয়ারা

কেঁদে কেঁদে বুক ভাসানো

এক অচল ভেলা ।

আমার নসিব তকমা পরা

এক জিন্দালাশ বেহুদা গন্ধ ছড়ানো

কাঁড়ি কাঁড়ি আবর্জনা।

 

মনসার কালনাগিনী হজম করেছে আমার

নাড়িভুড়ি হাড্ডি মাংস যৌবন রস

প্রাণ নেই মন নেই অস্থি মজ্জাহীন

আমি এক বিকল পাখি

ঘনঘন দম দেয়া এক বিকল পাখি।

2379 জন পড়েছেন

About মফিজুল ইসলাম খান

মফিজুল ইসলাম খান পিতা-মৃত আব্দুল মন্নাফ খান । মাতা-সাফিয়া খাতুন । জন্ম- ০৪-০৯-১৯৫৪ । জন্মস্থান-ঘিলাতলী, বিবির বাজার, কুমিল্লা। শিক্ষাগত যোগ্যতা-এমকম,এলএলবি । একটি জাতীয়করণকৃত ব্যাংকের ডিজিএম (অবঃ)। বর্তমানে আইনজীবী । বসবাস-ঢাকায় । ইতিপূর্বে প্রকাশিত কবিতার বই-আন্দোলিত প্রান্তরে আহত চিৎকার, জোসনার ফুল, যন্ত্রণার অনুলিপি । ছড়ার বই-তাক ডুমাডুম ঢোল বাজে । ছড়া-কবিতার বই-আবোল তাবোল । উপন্যাস-মিসকল মফিজ । যৌথ- কবিতার বই-কোমল গান্ধার । যৌথ শিশুতোষ গ্রন্থ-খেঁকশিয়াল ফুলপরী ও বাজপাখীর গল্প ।

Comments

মনসার কালনাগিনী / মফিজুল ইসলাম খান — ৪ Comments

  1. আহ, কবিতার প্রবক্তার সে কী যে কষ্ট! পাঠ করেই দুখে ধুকে মন ভরাক্রান্ত। বিদেশ বিভূঁইয়ে থাকি, না হয় সর্প-ওজাকে বলতাম, ‘বাপু রাম সাপুড়ে, ওখানে যাও বাপুরে/সুতানালীর বিষখানি, ঝেড়ে-ঝুড়ে কর হানি।’

    বেশ সুন্দর হয়েছে। চলতে থাকুক।